লালমনিরহাটের ছাত্রলীগ নেতা হত্যার প্রধান আসামীর থানায় আত্মসমর্পণ

রংপুর 0 Comment

সজীবুল হক, লালমনিরহাট ।। লালমনিরহাটের ছাত্রলীগ নেতা মশিউর রহমান মুশফিক(১৯) হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলার প্রধান আসামী নাজিম উদ্দিন (২২) থানায় এসে আত্মসমর্পণ করেছে। আত্মসমর্পণকারী নাজিম উদ্দিন আদিতমারী উপজেলার ভাদাই (খোলাহাটি) এলাকার মৃত আহসান হাবীবের ছেলে।

আদিতমারী থানা ডিউটি অফিসার (এএসআই) রফিকুল ইসলাম রফিক জানান,গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে একজন ছেলে নিজেকে নাজিম উদ্দিন পরিচয় দিয়ে তাকে (ডিউটি অফিসার) বলেন, আমি মুসফিককে হত্যা করেছি। আমাকে গ্রেফতার করুন। পরে তাকে ছাত্রলীগ নেতা মশিউর রহমান মুসফিক হত্যার মুল হোতা ও মামলার প্রধান আসামী হিসেবে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ। আত্মসমর্পণকারী নাজিম উদ্দিনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রাতেই লালমনিরহাট পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে নেয়া হয়।

পুলিশের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, প্রেমঘটিত একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ নেতা মশিউর রহমান মুশফিককে হত্যার কথা স্বীকার করেছে সে। সূত্রটি আরো জানায়, নাজিম উদ্দিন লালমনিরহাটের একটি টেকনিক্যাল কলেজে পড়াশোনা করত। এসময় একটি মেয়ের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

এ নিয়ে ওই মেয়েটির বড় ভাই নাজিম উদ্দিনকে মারধর করেন। আর ওই সময় ছাত্রলীগ নেতা মুশফিকুর রহমান মুশফিক ও তার বন্ধুরা তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে। সে সময় তারা নাজিম উদ্দিনের নিকট থেকে ৫ হাজার টাকাও আদায় করে। এঘটনাকে কেন্দ্র করে তারা নাজিমের নিকট বিভিন্ন সময় টাকা আদায় করত। ঘটনার দিনও সে টাকা আদায়ের জন্য সেতু বাজার এলাকায় আসে।

এ নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তাকে ছুরিকাঘাত করা হয় বলে নাজিম স্বীকার করেছে।  এঘটনায় মুশফিকের সাথে একই মোটরসাইকেলে আসা তার বন্ধু কুড়িগ্রামের বড়ভিটা এলাকার আব্দুল্লাহ’র ছেলে রাজিন আহমেদ রাহি (১৯) ও লালমনিরহাট সদর উপজেলার কলেজবাজার এলাকার আব্দুর রশীদের ছেলে মেহেদি হাসান রুবেল (২০) জড়িত নয় বলে সে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে।

ঘটনার দিন’ই ভাদাই ইউনিয়নের সেতু বাজার এলাকা থেকে এলাকাবাসী  মুশফিকুর রহমান মুশফিক এর বন্ধু রাজিন আহমেদ রাহি (১৯) ও মেহেদি হাসান রুবেল (২০) কে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

লালমনিরহাট জেলা ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক মশিউর রহমান মুশফিক(১৯) হত্যার ঘটনায় শুক্রবার রাতে নিহতের চাচা আকতার হোসেন বাদী হয়ে তিনজনের বিরুদ্ধে আদিতমারী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

আদিতমারী থানার ওসি হরেশ্বর বর্মণ জানান, হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত আত্মসমর্পণকারী  নাজিম উদ্দিনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। সেখানে সে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছে।

লালমনিরহাট পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক বলেন, মামলার প্রধান আসামী নাজিম মুশফিককে হত্যার বিষয়টি স্বীকার করেছে। তাকে আজ আদালতে পাঠানো হয়েছে। সেখানে সে বিচারকের কাছে জবানবন্দি দিবে।

উল্লেখ্য গত শুক্রবার রাতে আদিতমারী উপজেলার ভাদাই ইউনিয়নের সেতু বাজার এলাকায় ছাত্রলীগ নেতা মুশফিকুর রহমান মুশফিককে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়।

Category: Product #: Regular price:$ (Sale ends ) Available from: Condition: Good ! Order now!

Author

Leave a comment

Back to Top

Show Buttons
Hide Buttons