দাসিয়ারছড়ায় গভীর নলকুপে বিদ্যুৎ সংযোগ নেই : আবাদ নিয়ে হতাশা কৃষক

দাসিয়ারছড়ায় গভীর নলকুপে বিদ্যুৎ সংযোগ নেই : আবাদ নিয়ে হতাশা কৃষক

কুড়িগ্রাম 0 Comment

আব্দুল আজিজ মজন, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : ৩টি গভীর নলকুপ স্থাপন করা হলেও জোটেনি কৃষকদের ভাগ্যে সেচ দেয়ার ব্যবস্থা। ফলে এবারেও ইরিবোরে আবাদ করতে পারছে না দাসিয়ারছড়ার কৃষকেরা। গত বছর বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ায় ৩টি গভীর নলকুপ স্থাপন করে বরেন্দ্র ও বিএডিসি বিভাগ। কিন্ত বিদ্যুৎ বিভাগের গাফিলতির কারণে সংযোগ মেলেনি ওই তিনটি গভীর নলকূপে। সরকার বিলুপ্ত ছিটমহলের উন্নয়নের জন্য ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহন করলেও কি কারনে বিদ্যুৎ বিভাগ গভীর নলকূপে বিদ্যুৎ সংযোগ দিচ্ছে না তা কেউ বুঝে উঠতে পারছে না বলে জানিয়েছেন ওই এলাকার অধিবাসীরা। আবার কেউ কেউ সংগোপনে জমিতে সেচ দেয়ার আশায় অতিরিক্ত টাকা খরচ করেও ধর্না দিচ্ছে কর্মকর্তার পিছনে। তারপরেও চালু হয়নি বরেন্দ্রে ও বিএডিসি’র গভীর নলকুপ ৩টি। এ দিকে বরেন্দ্র ও বিএডিসি বিভাগের সঙ্গে পল্লী বিদ্যুতের রশি টানাটানির কারনে খেসারত দিতে হচ্ছে কৃষকের। ফলে এ মৌসুমে ইরিবোরো ক্ষেত লাগানো নিয়ে হতাশায় পড়েছে দাসিয়ারছড়ার অধিবাসীরা।
জানা গেছে, দাসিয়ারছড়ার কৃষকরা কম খরচে সেচ পাওয়ার আশায় বরেন্দ্র ও বিএডিসি বিভাগের অধীনে ৩টি গভীর নলকুপ স্থাপন করে এক বছর পূর্বে। এ গভীর নলকুপ ৩টি বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ার কালরহাটের সমন্বয়টরী, খড়িয়াটারী ও হাজিটারী গ্রামে স্থাপন করা হয়। গভীর নলকুপের আশায় শতাধিক কৃষক সমিতি ভুক্ত হয়ে জামানতের একলাখ করে টাকা দেন সংশ্লিষ্ট অফিসে। তাদের সাথে চুক্তি হয় দ্রুত পাইপ লাইন স্থাপন করে সেচ দেয়ার। সে আলোকে মেশিন ঘর নির্মান করে বসানোর কাজ শেষও করে বিভাগ দু’টি। দেয় হয় এক হাজার ফিট গভীর নলকুপের পাইপ লাইন। এতে কৃষকদের চাহিদা অনুযায়ী পাইপ লাইন সরবরাহ না হওয়ায় আরও অতিরিক্ত লাইন দেয়ার খরচ বাবদ কৃষকেরা জমা দেন ১৩ হাজার ২শ, ৬০ টাক। কিন্তু স্থাপনের জন্য অতিরিক্ত টাকা দেয়া হলেও খড়িয়াটারীর গভীর নলকূপে এখনও পাইপ বসানো হয়নি বলে জানিয়েছে এলাকার লোকজন। অতচ বুক ভরা স্বপ্ন নিয়ে ধার দেনা করে টাকা যোগান দিলেও মিলছে না সেচের ব্যবস্থা। দাসিয়ারছড়ায় সরকারী ভাবে বিভিন্ন দপ্তরের ব্যাপক উন্নয়নের ছোয়া চোখে পড়লেও কিন্তু পল্লি বিদ্যুৎ সমিতির দায়িত্বের অবহেলার কারনে এবারেও ইরিবোরো আবাদ করতে পারছে না বিলুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ার অধিবাসীরা। এরই মধ্যে অনেক কৃষক গভীর নলকূপের আশা ছেড়ে দিয়ে শ্যালো মেশিন লাগিয়ে ইরিবোরো আবাদের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ দিকে গভীর নলকূপ স্থাপিত হলেও চালু না থাকায় মেশিনের যন্ত্রাংশ ও পাইপ লাইন নষ্ট হওয়ার আশংকা প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্টরা।
দাসিয়ারছড়ার কালিহাটের সমিতি ভুক্ত কৃষক নজরুল ইসলাম,খড়িয়াটারী গ্রামে আকব্বর আলী ও সমন্বয়টারী ইসমাইল হোসেন জানান, ধার দেনা করে কম খরচের আশায় সেচের জন্য টাকা জমা দিয়েছি। কিন্তু পল্লি বিদ্যুৎ সমস্ত আশার মুখে বালি দিল। অফিসের লোকজন টালবাহনায় ফেলিয়েছে আমাদের। মনে হয় ইরিবোরো চাষাবাদ করতে পারছি না।
কুড়িগ্রাম বিএডিসির উপ-সহকারী প্রকৌশলী দিপক চন্দ্র রায় জানান, পল্লি বিদ্যুৎ এর ডিমান্ড নোটের কারনে দাসিয়ারছড়ার গভীর নলকূপে বিদ্যুৎ সংযোগের সমস্যা হচ্ছে। তবে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।
অতিরিক্ত টাকা নেয়ার কথা অস্বিকার করে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন বিভাগের কুড়িগ্রাম জোনের কর্মকর্তা নুর ইসলাম জানান, সংযোগ চালু করার জন্য একাধিক বার কাগজপত্র পল্লি বিদ্যুৎ অফিসে জমা দেয়া হয়েছে। কিন্তু তারা জানিয়েছে ঢাকা থেকে অনুমোদন হলে সংযোগ হবে।
নাগেশ্বরী পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ডেপুটির জেনারেল ম্যানেজার আখতারুজ্জামান জানান, তারা হুড়া করার কিছুই নেই। সেচ নীতিমালার জঠিলতা থাকার কারেন সংযোগ হয়নি। বরেন্দ্রে ও বিএডিসি আমাদের জানিয়েছেন। তবে কোন কাগজপত্র অফিসে জমা দেয়নি তারা। এখন কাগজপত্র জমা দিলে সংযোগের ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Category: Product #: Regular price:$ (Sale ends ) Available from: Condition: Good ! Order now!

Author

Leave a comment

Back to Top

Show Buttons
Hide Buttons